নবীজির রওজা মোবারকের উপর জানালা দেওয়ার কারণঃ নবীজির ইন্তেকালেরপর একবার মদীনা শরীফে দীর্ঘদিন অনাবৃষ্টির কারনে দুর্ভিক্ষ দেখা দেয় #তাই একদিন মদীনাবাসীরা…..

805

হযরত ওমর বিন মালেক (র) হতে বর্ণিত,তিনি বলেন, নবীজির ইন্তেকালেরপর একবার মদীনা শরীফে দীর্ঘদিন অনাবৃষ্টির কারনে অসহনীয় গরম আর দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়। তাই মদীনাবাসীরা একদিন মুমিনদের মা হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা (র) এর কাছে গিয়ে নিজেদের সমস্যার কথা উল্লেখ করে বৃষ্টির জন্য দোয়া কামনা করেন।তখন হযরত মা আয়েশা (র) বলেন, হে মদীনাবাসী তোমরা নবীজর রওজা মোবারকের উপর যে খেজুর গাছের ডাল আছে তা সরিয়ে দাও।এবং অপেক্ষা কর। মদীনাবাসীরা তখন হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা (র) এর পরামর্শ মোতাবেক কাজ করলেন। নবীজির রওজা মোবারকের উপর থাকে ডাল সরানোর সাথে সাথে হঠাৎ আমরা দেখলাম আকাশ ধীরে ধীরে কালো মেঘে ডাকা শুরু করছে,অল্প কিছুক্ষনের মধ্যেই আকাশ থেকে এমন ভাবে ভারী বর্ষন হতে শুরু করল যে,আমাদের পথ চলা কষ্ট দায়ক হয়ে পডলো। দীর্ঘ এক সপ্তাহ অনবরত আকাশ থেকে বৃষ্টি বর্ষণ হতে থাকে যা কিছুক্ষনের জন্যেও বন্ধ হয়নি।যা আমাদের ফসল ফলাদির জন্য পর্যাপ্ত ছিল।এক সপ্তাহ পর,মদীনাবাসীরা আবার মা হযরত আয়েশা সিদ্দীকা (র) এর কাছে গিয়ে বৃষ্টি বন্ধের জন্য দোয়া চায়। তখন হযরত মা আয়েশা সিদ্দীকা (র) বলেন,নবীজির রওজা মোবারকের উপর খেজুর গাছে ডাল পূর্বের মত দিয়ে দাও,বৃষ্টি বন্ধ হয়ে যাবে। মদীনাবাসীরা তাই করলো,সাথে সাথে বৃষ্টি বন্ধ হয়ে গেলো।
( সুত্র:- আবু দাউদ শরীফ:-১২৫৮..ইবনে মাজা:-৬০২…দারেমী:- ৯২৭

বন্ধ্যা নারীর সন্তান লাভের আমলঃ আল্লাহ তাআলা বান্দাকে তাঁর সুন্দর সুন্দর নামের জিকির বা আমল করার কথা বলেছেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসে আলাদা আলাদাভাবে এ নামের জিকিরের আমল ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের মধ্যে (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’ একটি। যার অর্থ হলো ‘আকৃতিদাতা, আকৃতি গঠনকারী।’ সংক্ষেপে এ গুণবাচক নাম (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হলো-
উচ্চারণ : ‘আল-মুসাওয়িরু’ অর্থ : আকৃতিদাতা, আকৃতি গঠনকারী।
আমলের ফজিলতঃ কোনো দম্পতি (স্বামী-স্ত্রী) উভয়ে সহবাসের পূর্বে আল্লাহ তাআলার এ গুণবাচক নাম (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’এর জিকির ৭ বার পাঠ করলে আল্লাহর রহমতে নেক সন্তান লাভ করবে।
যে স্ত্রী লোকের সন্তান হয় না (বন্ধ্যা) কিংবা সন্তান গর্ভে নষ্ট হয়ে যায়, সে নারী (বন্ধ্যা)৭ দিন রোজা রেখে প্রত্যেক দিন ইফতারের সময় আল্লাহ তাআলার গুণবাচক এ নাম (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’২১ বার পড়ে পানিতে ফুঁ দিয়ে ঐ পানির দ্বারা ইফতার করে এবং ইফতারের পর এই পবিত্র নামটি ২১ বার পড়ে, আল্লাহ তাআলা তাকে নেক সন্তান দান করবেন। সন্তান গর্ভে আসলে আল্লাহ তাআলা সে সন্তানকে হিফাজত করবেন। তাছাড়া যে ব্যক্তি কোনো বিপদের সময় এ পবিত্র গুণবাচক নাম (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’ পাঠ করবে, আল্লাহ তাআলা ঐ ব্যক্তির বিপদকে সহজ করে দেবেন। আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সকল সন্তানহীন দম্পতিকে এবং বিপদগ্রস্ত লোকদেরকে এ পবিত্র নাম (اَلْمُصَوٍّرُ) ‘আল-মুসাওয়িরু’-এর আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।