কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে গরুর গাড়ি, হুক্কা, ঢেঁকি ও পালকী

92

কালের আবর্তে হারিয়ে যেতে বসেছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ি, হুক্কা, ঢেঁকি ও পালকী ও গ্রামীণ খেলা হা-ডুডু, বৌচি, কানামাছি, ডাঙ্গুলি, দাড়িয়াবান্দা, গোল্লাছুট ও মার্বেল। বাংলা নববর্ষ এলেই দেশের মানুষ নিজেকে বাঙ্গালী প্রমাণ করার জন্য গ্রামীন অনুষঙ্গ নিয়ে মেতে উঠেন।
গ্রাম বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্যর প্রধান উপাদানগুলো ধীরে ধীরে বিলীন হতে চলেছে।গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী গরু মহিষের গাড়ি, কাঠের ঢেঁকি, লাঙ্গল পালকী ও হুক্কাসহ গ্রামীণ জীবনে ব্যবহ্রত গৃহস্থালীর অনেক কিছুই বিলীন হয়ে পড়েছে।

অতীতে বিয়েতে গরু মহিষের গাড়ি ও পালকী ব্যবহার হতো যা গ্রামীন ঐতিহ্য হিসেবে বিবেচিত হতো। হাট বাজারের পণ্য আনা নেওয়ার জন্য গরু মহিষের গাড়ি যাতায়াতের অন্যতম বাহন হিসেবে ব্যবহার হতো। আধুনিকতার ছোয়ায় যাতায়াতের বাহন হিসেবে বর্তমানে ব্যবহ্রত হচ্ছে অটোরিকশা, ভ্যান, সিএনজি, বাস, ট্রাক, মাইক্রোসহ ইঞ্জিন চালিত বাহন। চাল ছাটাইয়ের কাজে গ্রামাঞ্চলে অল্প পরিমানে ঢের ব্যবহার হলেও আধুনিক অটো রাইসমিলের ব্যবহারে ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে ঢেকী।
হুক্কার ব্যবহার নাই বললেই চলে। গ্রামীন খেলা হা ডুডু, বৌচি, কানামাছি, দাড়িয়াবান্দা, ডাঙ্গুলী, গোল্লাছুট ও মার্বেল যুগ এখন নাই বললেই চলে। অতীত আমলে এসব খেলাকে কেন্দ্র করে গ্রামে বসত বড় আকারে মেলা। এ সকল মেলায় ফুটে উঠত গ্রাম বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য।
আমাদের প্রবীণদের কাছে এসকল বিষয় এখন শুধুই স্মৃতি। সময়ের সাথে তাল মেলাতে গিয়ে বর্তমানে মানুষও হয়ে পড়ছে যান্ত্রিক। এ সকল ঐতিহ্যবাহী বিষয় গুলো একসময় স্থান করে নিবে জাদুঘরে মানুষ হয়ে পড়বে আরো যান্ত্রিক।